ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২

শিক্ষক-কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ডকে দুর্নীতিমুক্ত করার নির্দেশ

বিডিশিক্ষা ডেস্ক

২০২২-০৪-৩০ ২০:২১:৪১ /

 

শিক্ষক-কর্মচারী অবসর সুবিধা বোর্ডের সচিব অধ্যক্ষ শরীফ আহমদ সাদী বোর্ডকে দুর্নীতিমুক্ত করতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নির্দেশ দিয়েছেন । তিনি বলেছেন, মনে রাখতে হবে দূর্নীতি পরায়ন কতিপয় ‘ইঁদুর’ প্রযুক্তির সংযোগ তার কেটে দেয়। সেই ২০১২ খ্রিষ্টাব্দে প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন করা অনলাইন প্রযুক্তি নষ্ট করে দেয়া হয়েছিল বলে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা ভয়াবহ দুর্ভোগে পড়েছিলেন। সারা দেশের শিক্ষক-কর্মচারীদের সজাগ এবং সতর্ক থাকতে হবে, কারা তাদের ফাঁদে ফেলে বিভিন্নভাবে হয়রানি করতে চায় সে বিষয়ে। অবসর বোর্ডকে হয়রানিমুক্ত ও দুর্নীতিমুক্ত অফিস হিসেবে পরিচিত করতে হবে। 

গত বৃহস্পতিবার বোর্ডের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে আয়োজিত এক সভায় এসব কথা বলেন তিনি। নিয়োগ পাওয়ার এক দিন পর অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে সভা করেন অবসর সুবিধা বোর্ডের সচিব অধ্যক্ষ শরীফ আহদ সাদী। সভা শেষে বোর্ডের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

সভায় অফিসের সবাইকে আরও দায়িত্বশীলতার সাথে কাজ করার এবং বোর্ডের যাবতীয় কার্যক্রম গতিশীল করার নির্দেশ দেন। তিনি বলেন, মধ্যস্বত্বভোগী দালাল প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে যে লড়াই অবসর বোর্ড শুরু করেছিলো তা আরও জোরদার করতে হবে। প্রযুক্তি যত এগিয়ে যাবে, দুর্নীতি তত কমে যাবে আর দুর্নীতি করতে না পারা মানুষেরা তত বেশি অসন্তষ ও বিষোদগার ছড়াবে। সব ধরনের হিংসা বিদ্বেষ ও প্রতারণার বিরুদ্ধে লড়াই করে অবসর বোর্ডকে এগিয়ে নিতে হবে। 
 
সচিব অধ্যক্ষ শরীফ আহমদ সাদী উপস্থিত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছ থেকে স্কুল, কলেজ ও মাদরাসার হালনাগাদ তথ্য জানতে চান। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা সভায় শাখার কর্মপরিধি সম্পর্কে সচিবকে জানান। স্কুল, কলেজ ও মাদরাসার ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দের মে ও জুন মাসের জমা করা আবেদন নিষ্পত্তি করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশনা দেয়া হয় সভায়।

বোর্ডের উপ-পরিচালক (প্রশাসন) বারুণী রঞ্জন বিশ্বাস বলেন, সব ধরনের তদবির ও সুপারিশ নিরুৎসাহিত করার জন্য সচিব মহোদয়কে শক্ত অবস্থানে থাকতে হবে। এ সুপারিশের ফাঁকে দালাল ও প্রতারকরা অনুপ্রবেশ করে। তিনি বলেন, অবসর বোর্ডে সশরীরে আসা সেবাগ্রহীতাদের সব ধরণের আবেদনের বিষয়ে সচিব বিধি মোতাবেক আবেদন নিষ্পত্তির বিষয়ে ব্রিফিং দেবেন। গুরুতর অসুস্থ শিক্ষক-কর্মচারীগণ নিজে বোর্ড অফিসে উপস্থিত হয়ে অথবা উপস্থিত হতে না পারলে তাদের স্ত্রী বা স্বামী বা ছেলে মেয়ে নির্ধারিত অসুস্থতার ফরমে সংশ্লিষ্ট কাগজপসহ আবেদন করবেন। আবেদন রিসিভ করবেন বোর্ডের উপ-পরিচালক (প্রশাসন) এবং রেজিস্টারে তালিকাভুক্ত করে সংরক্ষণ করবেন। বোর্ডের নির্ধারিত স্বাস্থ্যবিষয়ক টেকনিকো কমিটি কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করবেন, আবেদনকারী প্রকৃতই গুরুতর অসুস্থ কিনা।

সভায় পুরাতন জিনিসপত্র বাতিল ঘোষণা, সংরক্ষণ ও বিধি মোতাবেক বিক্রয়ের জন্য কমিটি গঠন করা হয়। নতুন জিনিসপত্র ও আসবাবপত্র ক্রয়ের প্রয়োজনে স্বচ্ছতার স্বার্থে একটি প্রশাসনিক কমিটি গঠন করা হয়। নতুন জিনিসপত্র আসবাবপত্র ক্রয়ের প্রয়োজনে স্বচ্ছতার স্বার্থে একটি প্রশাসনিক কমিটি গঠন করা হয়। প্রশাসনিক কমিটি প্রাপ্ত বিকুইজিশন যাচাই বাছাই, বাজার যাচাই করে ক্রয় সম্পন্ন করার জন্য, বোর্ডের নির্ধারিত জন্ম কমিটির সাথে সমন্বয় করে কাজ সম্পন্ন করবেন।

বাংলাদেশ শিক্ষা/এফএ

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

এমপিও জটিলতায় পরা শিক্ষকদের তথ্য চেয়েছে এনটিআরসিএ

এমপিও জটিলতায় পরা শিক্ষকদের তথ্য চেয়েছে এনটিআরসিএ

গৃহবধূকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

গৃহবধূকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

পদ্মা সেতুর টোল কমানোর দাবি জানিয়েছেন জাতীয় কমিটি

পদ্মা সেতুর টোল কমানোর দাবি জানিয়েছেন জাতীয় কমিটি