ঢাকা, রবিবার, ৩ জুলাই ২০২২

প্রধান শিক্ষকের স্বামীর হাতে লাঞ্ছিত হলেন সহকারী শিক্ষক

জেলা প্রতিনিধি

২০২২-০৬-১৫ ১২:৩২:৫৪ /

ছবি সংগৃহিত: মাহবুবর রহমান চঞ্চল

 

জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাহবুবর রহমান ওরফে চঞ্চল এর গালে চড় মেরেছেন বড়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আশরাফ আলী ফকির। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের কার্যালয়ের ফটকের সামনে আজ গত মঙ্গলবার বেলা একটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

শিক্ষক মাহবুবর রহমান উপজেলার হিন্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। পাশাপাশি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও ১০ম গ্রেড বাস্তবায়ন পরিষদের সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আশরাফ আলীর স্ত্রী দেল আফরোজা আরা বানু হিন্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। একই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাহবুবর। বিদ্যালয়ের দোকানভাড়ার টাকা ও স্লিপ ফান্ডের টাকা খরচের হিসাব নিয়ে তাঁদের মধ্যে দ্বন্দ্ব রয়েছে। প্রধান শিক্ষকের স্বামী আশরাফ আলী বিষয়টি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাকিম মণ্ডলকে জানান। উপজেলা চেয়ারম্যান মাহবুবরকে তাঁর কার্যালয়ে আসতে বলেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিরা বলেন, মাহবুবর তাঁর সহকর্মী জিল্লুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে বেলা একটার দিকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের কার্যালয়ের ফটকের সামনে পৌঁছান। সেখানে প্রধান শিক্ষক দেল আফরোজার স্বামী আশরাফ আলী ও মাহবুবর রহমানের মধ্যে তর্কাতর্কি হয়। একপর্যায়ে আশরাফ আলী মাহবুবরের গালে দুটি চড় মারেন। এ নিয়ে সেখানে তাঁদের দুজনের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এতে মাহবুবর আহত হন। এরপর লোকজন তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

বড়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আশরাফ আলী ফকির জানান, ‘বিদ্যালয়ের দোকানঘরের ভাড়ার টাকা নিয়ে আমার স্ত্রীর সঙ্গে সহকারী শিক্ষক মাহবুবর রহমানের দ্বন্দ্ব হয়। আমার স্ত্রীকে উদ্দেশ করে শিক্ষক মাহবুবর রহমান তাঁর ফেসবুকে আজেবাজে কথা লেখেন। এ কারণে শিক্ষক মাহবুবর রহমানের গালে কষে দুটি চড় মেরেছি। আমি চড় মারার কথা ওসিকেও বলেছি। 

মাহবুবর রহমান চঞ্চল বাংলাদেশ শিক্ষাকে বলেন গত মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে উপজেলা চেয়ারম্যান মহোদয় মুঠোফোনে কল করে আমাকে দ্রুত তাঁর কার্যালয়ে আসতে বলেন। হাটশহর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জিল্লুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে বেলা একটায় উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ের ফটকের সামনে পৌঁছাই। সেখানে আমার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককের স্বামী বড়াইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আশরাফ আলী আমাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। আমার গলা ও ঘাড়ে প্রচণ্ড আঘাত লেগেছে।  আমি ফেসবুকে কাউকে উদ্দেশ্য করে কিছু লিখিনি। আমি সুষ্ঠু বিচার প্রার্থণা করছি এবং অপরাধীকে দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি। 

ক্ষেতলাল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাকিম মণ্ডল  বলেন, প্রধান শিক্ষকের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে হিন্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাহবুবর রহমানকে ডেকেছিলেন তিনি। তাঁর কক্ষে ঢোকার আগেই দুই পক্ষ মারামারি করেছে। এ ঘটনাকে দুঃখজনক বলে উল্লেখ করেন তিনি।

বিডিশিক্ষা/এফএ

 

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েও বাতিল হয়েছে যে কারণে

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েও বাতিল হয়েছে যে কারণে

যে কারণে গ্রাম্য সালিশে শিক্ষককে ২ লাখ টাকা জরিমানা

যে কারণে গ্রাম্য সালিশে শিক্ষককে ২ লাখ টাকা জরিমানা

প্রাথমিক শিক্ষার মান-উন্নয়নে যা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক

প্রাথমিক শিক্ষার মান-উন্নয়নে যা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক